প্রচ্ছদ অর্থনীতি রেকর্ডসংখ্যক তরুণ ধনী

রেকর্ডসংখ্যক তরুণ ধনী

25
0

• শতকোটি ডলারের মালিক রেকর্ডসংখ্যক তরুণ
• অর্ধেকের বেশি নিজের চেষ্টায় ধনী 
• ৩০ জন প্রযুক্তি খাতের

মার্কিন সাময়িকী ফোর্বস–এর ২০১৯ সালের বিশ্বের শীর্ষ ধনীর তালিকায় যে ২ হাজার ১৫৩ জন বিলিয়নিয়ার বা শতকোটি ডলারের মালিক স্থান পেয়েছেন, তাঁদের মধ্যে এবারই রেকর্ডসংখ্যক তরুণ জায়গা করে নিয়েছেন। তালিকায় স্থান পাওয়া বিশ্বসেরা ধনীদের মধ্যে ৭১ জনের বয়স ৪০-এর নিচে। এই তরুণদের মধ্যে ২১ জন এবারই প্রথমবারের মতো এ তালিকায় নাম লিখিয়েছেন। আবার বিশ্বসেরা ৭১ তরুণ ধনীর মধ্যে ৪১ জন অর্থাৎ অর্ধেকের বেশি নিজের চেষ্টায় ধনী হয়েছেন। ফোর্বসের এবারের তালিকায় বিশ্বের শীর্ষ ধনী হিসেবে নাম লেখানো তরুণ উদ্যোক্তাদের মধ্যে ৩০ জন প্রযুক্তি খাতের, ৭ জন ফ্যাশন ও খুচরা বিক্রি প্রতিষ্ঠানের এবং ৭ জন রিয়েল এস্টেট ব্যবসার সঙ্গে জড়িত।

ফোর্বসের এবারের তালিকায় থাকা নিজের চেষ্টায় প্রতিষ্ঠিত ৪০ বছরের কম বয়সী শীর্ষ ধনীদের মধ্যে কাইলি কসমেটিকসের প্রতিষ্ঠাতা কাইলি জেনার ছাড়া বাকি সবাই পুরুষ। কাইলি এ বছরের তালিকায় প্রথমবারের মতো স্থান পেয়েছেন এবং এরই মধ্যে তিনি কনিষ্ঠতম বিলিয়নিয়ারের স্বীকৃতি পেয়েছেন। ২০১৯ সালের তালিকায় পৃথিবীর সবচেয়ে কনিষ্ঠ বিলিয়নিয়ারও হয়েছেন ২১ বছর বয়সী কাইলি জেনার। এর আগে টানা তিন বছর এই স্বীকৃতি ছিল নরওয়ের ২২ ও ২৩ বছর বয়সী দুই বোন আলেক্সান্দ্রা আন্দ্রেসেন ও ক্যাথারিনার দখলে।

ফোর্বসের হিসাবে, ২১ বছর বয়সী কাইলি জেনারের সম্পদের মূল্য ১০০ কোটি মার্কিন ডলার। এরই মধ্যে এ তরুণ নারী যুক্তরাষ্ট্রের কসমেটিকস মোগল হিসেবে স্বীকৃতি পেয়ে গেছেন। এর আগে ফেসবুকের সহপ্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গ ২৩ বছর বয়সে বিলিয়নিয়ার হিসেবে ফোর্বসের তালিকায় নাম লিখিয়ে বিশ্বজুড়ে শোরগোল ফেলে দিয়েছিলেন। জাকারবার্গের পর এখন ২১ বছর বয়সী বিলিয়নিয়ার কাইলি জেনারকে নিয়েও তুমুল শোরগোল চলছে।

এদিকে ৪০-এর নিচের বয়সের ধনীদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছেন সদ্য ৩৯ বছরে পা দেওয়া জেমস মনসিস। তিনি ৪৩ বছর বয়সী অ্যাডাম বাওয়েনকে সঙ্গে নিয়ে ইলেকট্রনিক সিগারেট তৈরির বিতর্কিত কোম্পানি জুল ল্যাবস তৈরি করেন। ২০১৮ সালে সিগারেট কোম্পানি আলট্রিয়া জুল ল্যাবসের শেয়ার কিনলে কোম্পানির মূল্য দাঁড়ায় ৩ হাজার ৮০০ কোটি ডলার।

ফোর্বসের তালিকায় থাকা ৪০ বছরের কম বয়সী ধনীদের মধ্যে এবারও সবচেয়ে বেশি সম্পদের মালিকের স্বীকৃতি পেয়েছেন ফেসবুকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মার্ক জাকারবার্গ। তাঁর সম্পদের পরিমাণ ৬ হাজার ২৩০ কোটি ডলার। তালিকায় জাকারবার্গের পরের তরুণের চেয়ে তাঁর সম্পদের পরিমাণ তিন গুণ বেশি। ২০১৮ সালে তথ্য ফাঁস জালিয়াতিতে জাকারবার্গের সম্পদ ৮৭০ কোটি ডলার কমলেও তিনি তরুণদের মধ্যে শীর্ষস্থান ধরে রেখেছেন। জাকারবার্গের পর তরুণদের মধ্যে শীর্ষ ধনী হচ্ছেন চীনের ইয়্যাং হুইয়ান, যদিও তিনি বাবার উত্তরাধিকার সূত্রে এই সম্পদের মালিক হয়েছেন।

এবারের তালিকায় থাকা ৪০-এর কম বয়সী ৭১ জন তরুণের সম্মিলিত সম্পদের পরিমাণ ২৯ হাজার ৯০০ কোটি ডলার, যা আগের বছর ছিল ২৬ হাজার ৫০০ কোটি ডলার। গত বছর ৪০-এর কম বয়সী বিলিয়নিয়ারদের সংখ্যা ছিল ৬৩। এদের মধ্যে ১৭ জনের সম্পদ বেড়েছে আর ২৪ জনের কমেছে।

এ ছাড়া ফোর্বস এবার ৩০ বছরের কম বয়সী বিলিয়নিয়ারদের নিয়ে সবচেয়ে তরুণ ধনী নামে আলাদা একটি তালিকা করেছে। সেই তালিকায় স্থান পেয়েছেন ৩০ বছরের কম বয়সী ৮ জন ধনী। এ আটজনের মধ্যে তিনজনই নিজের চেষ্টায় বিপুল সম্পদের মালিক হয়েছেন। অন্যরা উত্তরাধিকার সূত্রে বিপুল সম্পদের মালিক। ৩০–এর কম বয়সী ৮ ধনীর মধ্যে সবচেয়ে কম বয়সী হিসেবে কাইলি জেনারও রয়েছেন।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য যুক্ত করুন
আপনার নাম লিখুন